image

আজ, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ ,


চলতি বছরে ৯৩৬টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা

চট্টগ্রামে অগ্নিঝুঁকিতে ৪১ এলাকা

চট্টগ্রামে অগ্নিঝুঁকিতে ৪১ এলাকা

অগ্নিকান্ডের ঘটনা যেন থামছেই না। সেই সাথে হুড়হুড়িয়ে বাড়ছে অগ্নিকান্ডে মৃত্যর মিছিল। চলতি বছর জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত চট্টগ্রাম নগরীতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে ৯৩৬ টি। এসব ঘটনায় আগুনে পুড়ে মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের এবং আহত হয়েছে অন্তত ২৬ জন। এছাড়া চট্টগ্রাম নগরীর ৮ টি স্টেশনে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে নগরের ২৩টি মার্কেট ও ১৮ টি এলাকা।

চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে অগ্নিকাণ্ডে সর্বাধিক নিহতরে ঘটনা ঘটেছে। ১০৪ টি অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা ১১ জন এবং আহতের সংখ্যা ৪ জন। তবে চলতি বছর মার্চে নগরীতে সর্বাধিক image ৩৯৮ টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলেও মৃতের সংখ্যা শূণ্য। এছাড়াও চলতি বছর জানুয়ারীতে ৮১টি, এপ্রিলে ৮৬টি, মে মাসে ৪৫ টি, জুনে ৩৩টি, জুলাইত মাসে ৩০টি, আগস্ট মাসে ২৯টি, সেপ্টেম্বর মাসে ৮৬টি এবং অক্টোবর মাসে ৪৪ টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সচতনার অভাব, অপরিকল্পিতভাবে কাঁচাবাজার, বসতি ও মার্কেট গড়ে তোলা এবং ভবন নীতিমালা আইন অনুসরণ না করে বহুতল ভবন গড়ে তোলার কারণেই অগ্নিঝুঁকিতে রয়েছে এসব এলাকা। 

একদিকে পাহাড়ি অঞ্চল চট্টগ্রাম অন্যদিকে ঘনবসতি।  মূলত এসব কারেণেই বাড়ছে অগ্নি ঝুঁকি। ব্যাপক অগ্নিঝুঁকিতে রয়েছে  বায়েজীদ, বাকলিয়া, আগ্রাবাদ, চকবাজার সহ ঘনবসতিপূর্ণ অনেক এলাকা।

সম্প্রতি আগুনে পুড়ে ছাঁই হয় চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানাধীন জহুর হর্কাস মার্কেটের প্রায় শতাধিক দোকান। ব্যবসায়ীরা বলছেন, এ ঘটনায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, সর্বসাকুল্যে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় কোটি টাকা । নন্দকানন ফায়ার স্টেশনের অগ্নিঝুঁকিতে থাকা ৪টি মার্কেটের মধ্যে এ মার্কেটটি রয়েছে ২ নম্বর স্থানে। এছাড়াও ১ম স্থানে রয়েছে চট্টগ্রামের সর্ববৃহৎ কাঁচা বাজর রিয়াজ উদ্দিন বাজার।  এ স্টেশনের আওতায় থাকা টেরীবাজার ও তামাকুণ্ডি লেইন মার্কেট রয়েছে অগ্নিঝুঁকিতে। এছাড়াও অগ্নিকান্ডের ঝুঁকিতে থাকা অন্যান্য মার্কেট গুলো হলো চকভিউ সুপার মার্কেট, কেয়ারী শপিং মল, গোলজার মার্কেট, সিঙ্গাপুর সমবায় সমিতি মার্কেট, কর্ণফুলী মার্কেট সহ নগরের প্রায় ২৩ টি মার্কেট।

চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্মকর্তারা বলছেন, অপরিকল্পিত ভাবে গড়ে ওঠা এসব মার্কেট জরুরি সময়ে ব্যবহার করার পর্যাপ্ত বর্হিগমন (বেরিয়ে আসার) পথ নেই। এসব মার্কেটে যদি ব্যস্ততম সময়ে আগুন লাগাসহ যে কোন ধরণের দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে ঘটে যেতে পারে বড় ধরণের অঘটন।

এছাড়াও অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকিতে রয়েছে চট্টগ্রামের বৃহৎ পাইকারি ও খুচরা পণ্যর বাজার খাতুনগঞ্জ। এশিয়ার মসলা ঘর খ্যাত এ বাজারের আশপাশে অবস্থিত মার্কেটগুলোর মধ্যে ভেড়া মার্কেট, চাউল পট্টি, শুটকি পট্টি, আসাদগঞ্জ, মিয়াখান নগর পুরাতন জুট মার্কেট ও ওমর আলী মার্কেটও রয়েছে অগ্নিঝুঁকিতে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম ফায়াস সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের চিহ্নিত অগ্নিঝুঁকি পূর্ণ তালিকায় রয়েছে, সম্প্রতি চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কতৃক উচ্ছেদ হওয়া কদমতলী রেলওয়ে বসতি। কলসীদীঘি পাড় এলাকাধীন বসতি সমূহ, আকমল আলী এলাকাধীন কলোনী, অভিজাত এলাকা খ্যাত নগরীর খুলশী থানাধীন ঝাউতলা বস্তি, আমবাগান বস্তি, আক্সিজেন রেল এলাকা সংলগ্ন বস্তি এলাকা, বার্মা কলোনী, রৌফবাদ কলোনী  ও শেরশাহ কলোনী। 

চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দীন সিভয়েসকে বলেন, মূলত চট্টগ্রামের ঘনবসতি পূর্ণ এলাকা সমূহ চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের  অগ্নিঝুঁকির তালিকায় রাখা হয়েছে। তবে চট্টগ্রাম পাহাড়ি অঞ্চলে অবস্থিত হওয়ার কারণে বর্ষাকালে পাহাড় ধ্বসের ঘটনাও ঘটে থাকে। নগরীর লালখান বাজার, খুলশী সহ বিভিন্ন এলাকায় পাহাড় ধ্বসের ঘটনাও ঘটে থাকে। আবার এসব এলাকায় অবৈধভাবে পাহাড় কাটার অভিযোগও রয়েছে। তাই চট্টগ্রাম ফায়াস সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এবং চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন সমন্বিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও  সিভিল ডিফেন্সে সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানান, মার্কেটগুলোতে অগ্নিঝুঁকি কমানোর জন্য বছরের বিভিন্ন সময়ে অগ্নি নির্বাপক মহড়া, মাইকিং এবং নির্দিষ্ট নীতি মালা অনুসরণ করে দোকান গড়ে তোলার পরামর্শ দেওয়া হলেও মার্কেট মালিক ও সমিতির সদিচ্ছার অভাবে বছরের পর বছর শত চেষ্টার পরও অগ্নিঝুঁকির তালিকা থেকে বেরিয়ে আসতে পারছে না এসব মার্কেট।

অন্যদিকে এসব মার্কেটের ব্যবসায়ীরা বলছেন, স্থানীয় মার্কেট সমিতির যোগসাজেশে  মার্কেটের প্রচলিত অনিয়ম, ফুটপাত দখল করে হর্কাস বসােনো এবং মার্কেটে চলাচলের রাস্তা দখল করে মালামাল রাখার প্রবণতা  সহ বিভিন্ন কারণে ফিরে আসছে না এসব মার্কেটের শৃঙ্খলা।

সিভয়েস/এএস

আরও পড়ুন

শব্দদূষণের মাত্রা রেকর্ডেই সীমাবদ্ধ পরিবেশ অধিদপ্তর

শব্দদূষণের মাত্রা রেকর্ড করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ পরিবেশ অধিদপ্তরের বিস্তারিত

বায়ু দূষণে বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

যান্ত্রিক যুগের কারণে বাস, ট্রাক, ট্রাক্টর, স্যালো ইঞ্জিনবাহিত যানবাহন বিস্তারিত

থমকে আছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ !

জটিলতার কারণে বন্ধ রয়েছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ। তবে বিস্তারিত

৮ ডুবুরি দিয়ে চলছে ১১ জেলার কার্যক্রম

চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার ৩ কোটি মানুষের জলপথে দুর্ঘটনায় উদ্ধার কাজে বিস্তারিত

 সংস্কৃতিমনাদের আশার আলো মুসলিম হলের নতুন কমপ্লেক্স

আধুনিক, মানসম্মত এবং সাংস্কৃতিক অনুকূল পরিবেশ সম্পন্ন মিলানায়াতনের বিস্তারিত

খাগড়াছড়িতে বিদ্যুৎ উন্নয়ন প্রকল্পে অনিয়ম-অব্যবস্থাপনায় কাজে ধীরগতি

প্রায় সাড়ে ৫শ' কোটি টাকার ‘'তিনটি পার্বত্য জেলায় বিদ্যুৎ বিতরণ বিস্তারিত

ক্ষতি পোষানোর আশায় মৎস্যজীবীরা, ৬ দিনেই ধরা ১৫১ মেট্রিক টন মাছ

মৎস্য সম্পদ রক্ষার্থে ২২ (৯ থেকে ৩০ অক্টোবর) দিন নিষেধাজ্ঞা শেষে পুনরায় বিস্তারিত

৭ জন ডাক্তার দিয়েই চলছে চট্টগ্রাম বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতাল

১শ' শয্যা বিশিষ্ট চট্টগ্রাম বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা চলছে বিস্তারিত

চমেকে 'গৃহের আলো'র নতুন উদ্যোগ,অজ্ঞাত রোগীদের মিলবে আশ্রয়

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্বজনহীন অজ্ঞাত রোগীরা চিকিৎসা শেষে বিস্তারিত

সর্বশেষ

র‌্যালি জুড়ে আবেগ মিশালি উচ্ছ্বাস

দেশের ভিন্ন ভিন্ন প্রান্ত পেরিয়ে ছুটে আসার উদ্যেশ্য কী? উত্তরে বলেছেন, জমাট বিস্তারিত

নদী ড্রেজিংয়ের অর্ডার স্থানীয় প্রশাসনের রক্ষাকবচ!

সাতকানিয়ায় যুবলীগ নেতা আহম্মদ হোসেনের বিরুদ্ধে বালু উত্তোলনের অভিযোগ বিস্তারিত

সানি হত্যা মামলার দুই আসামি কারাগারে

নগরে স্কুলছাত্র জাকির হোসেন (সানি) হত্যা মামলায় দুই আসামির জামিন আবেদন বিস্তারিত

ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজের মৃত্যুবার্ষিকীতে ছাত্রলীগের একাংশের স্মরণসভা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক দিয়াজ বিস্তারিত

সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত, এই ওয়েব সাইটের যেকোন লিখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনি