image

আজ, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ,


পূজার আগমনী বার্তায় ব্যস্ত মৃৎ শিল্পীরা

পূজার আগমনী বার্তায় ব্যস্ত মৃৎ শিল্পীরা

ছবি: সিভয়েস

শরতের হিমেল বাতাসে মহালয়া জানিয়ে দিয়ে যায় মা দূর্গার আগমনী বার্তা। এ বার্তায় উৎসবের জানান দিয়ে দেবী দূর্গার ভক্তকূল সেজে উঠে নতুন সাজে। দেবী দূর্গা হলো শক্তির রূপ। হিন্দুশাস্ত্র অনুসারে দেবী দূর্গা হলেন ‘দূর্গতনাশিনী’ বা সকল দুঃখ দুর্দশার বিনাশকারিনী।

আর তাই দেবী দূর্গার আগমনীকে স্বাগত জানিয়ে দূর্গা তৈরিতে ব্যস্ত চট্টগ্রামের মৃৎ শিল্পীরা। মন্দিরে মন্দিরে চলছে দেবী দূর্গা তৈরির কাজ। প্রতিবার শরৎতের স্নিগ্ধ সময়েই বাড়তি কাজের চাপ থাকে এসব শিল্পীদের। খড়, বাঁশের কাঠি, সূতলি, পাটের সংমিশ্রনে মাটির প্রলেপ বুনে চলছে দেবী দূর্গার অবয়ব তৈরির image কাজ।

সরেজমিনে দেখা মেলে, নগরীর সিআরবি, সদরঘাট, জেম সেন হলসহ সব’কটি মন্দিরে ব্যস্ত সময় পার করছেন শিল্পিদের দল। এদের কেউ  নকঁশা তৈরির শিল্পী, কেউ বুনেন মাটির প্রলেপ, আবার কেউবা রং-তুলিতে সাজায় মূর্তি। নির্দিষ্ট সময়েই ভক্তকূলকে পৌঁছে দিতে হবে ‘মূর্তি’। তাই এতো ব্যস্ততা জানালেন সিআরবি সাত রাস্তার মোড়স্থ শ্রী শ্রী ব্রজধাম মন্দিরের কারিগর তুষি রন্জন পাল।

দেব দেবীর প্রকৃতি আর উৎকর্ষতার ভিত্তিতে বানানো হয় সেট। প্রতি সেটে থাকে দূর্গা, লক্ষ্মী, স্বরসতী, কার্তিক আর গণেশ। দেব দেবীর আকার আকৃতি আর নকশাভেদে নির্ধারণ করা হয় দাম। সেট প্রতি দাম শুরু হয় ২০ হাজার থেকে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। তবে শহর এলাকার বাইরে প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে দাম পড়ে বেশি। কেননা দূরবর্তী অঞ্চলে দেবী-দূর্গার অবয়ব তৈরি করে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব নয়। তাই এসব অঞ্চলে শিল্পীরা গিয়ে তৈরি করে দেয় মূর্তি, যার দরুণ দামও পড়ে বেশি।

তবে দিন দিন শিল্পীদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে জানিয়ে সদরঘাট কালীবাড়ি মন্দিরস্থ দুলাল পাল প্রতিমালয়ের কর্ণধার সুজন পাল জানান, চট্টগ্রামে মৃৎশিল্পী নেই বললেই চলে। এসব কাজে পরিশ্রম বেশি, কিন্তু পারিশ্রমিক কম। এ কারণেই এ পেশা ছেড়ে দিয়েছেন অনেক শিল্পী। অন্যদিকে সৃষ্টি হচ্ছে না নতুন শিল্পী। বর্তমানে যারা এ পেশায় আছেন তারা বংশ পরম্পরায় এ কাজ করে যাচ্ছেন। তবে বেশিরভাগ শিল্পী আসেন ফরিদপুর জেলা থেকে। কেননা এ শিল্পের গোড়াপত্তনটা ফরিদপুরেই।

-সিভয়েস/এএ/এসএ

আরও পড়ুন

‘কিছু খাদ্য ব্যবসায়ী কৃত্রিম সংকট তৈরি করে জনগণের পকেট কাটে’

‘সরকার খাদ্য উৎপাদনে সফলতা দাবি করলেও প্রতি বছর কৃষক কোন না কোন কৃষি বিস্তারিত

শিক্ষা দিবসে মহানগর ছাত্রলীগের বর্ণাঢ্য র‌্যালি

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতীয় শিক্ষা দিবস উপলক্ষে র‌্যালি বের করেছে বিস্তারিত

থানায় নাগরিক তথ্য নিশ্চিত করার নির্দেশ সিএমপি কমিশনারের

নগরীর পাঁচলাইশ থানা পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বিস্তারিত

রোহিঙ্গা ভোটার: নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মচারীসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তির চেষ্টা ও ল্যাপটপ গায়েবের ঘটনায় বিস্তারিত

পেঁয়াজের দাম না কমালে কঠোর ব্যবস্থা : বিভাগীয় কমিশনার

দ্রুত পেঁয়াজের দাম না কমালে বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানোর বিস্তারিত

প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে চলছে নগরীর সড়ক সংস্কার 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম সফরে আসার বিস্তারিত

রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র করে দেওয়ায় চট্টগ্রামে আটক ৩

মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র করে দেওয়ার সঙ্গে জড়িত থাকার বিস্তারিত

সীতাকুণ্ডে দুই কারখানায় ২৫ লাখ টাকা জরিমানা 

পরিবেশ দূষণের অভিযোগে সীতাকুণ্ডে দু’টি কারখানাকে ২৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা বিস্তারিত

রাস্তার পাশ থেকে স্কুল শিক্ষকের নবজাতক শিশু উদ্ধার

রাস্তার পাশে চট আর পলিথিন মোড়ানো অবস্থায় এক স্কুল শিক্ষকের নবজাতক শিশুকে বিস্তারিত

সর্বশেষ

যে বিদ্যালয়ে ভর্তির আগে সাঁতার শিখতে হয়!

যে বিদ্যালয়ে ভর্তির আগে সাঁতার শিখতে হয়!

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (ব

শুষ্ক মৌসুমে কখনো গলা, কখনো বুক পানি পেরিয়ে আসতে হয় বিদ্যালয়ে। খাল পেরিয়ে বিস্তারিত

তামাকমুক্ত চট্টগ্রাম তৈরিতে গঠিত ওয়ার্কিং কমিটির সভা

তামাকমুক্ত চট্টগ্রাম শহর তৈরির লক্ষ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের গঠিত বিস্তারিত

চট্টগ্রাম সাংস্কৃতিক পরিষদের দ্বি-বর্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন

চট্টগ্রাম সাংস্কৃতিক পরিষদের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। বিস্তারিত

‘কিছু খাদ্য ব্যবসায়ী কৃত্রিম সংকট তৈরি করে জনগণের পকেট কাটে’

‘সরকার খাদ্য উৎপাদনে সফলতা দাবি করলেও প্রতি বছর কৃষক কোন না কোন কৃষি বিস্তারিত

সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত, এই ওয়েব সাইটের যেকোন লিখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনি