image

আজ, শনিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২০ ,


দ্রুত শাস্তি নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে : হাইকোর্ট

দ্রুত শাস্তি নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে : হাইকোর্ট

দ্রুততম সময়ে অপরাধীদের বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে না পারায় ধর্ষণের মতো অপরাধ বাড়ছে বলে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন হাইকোর্ট। ধর্ষণ সংক্রান্ত মামলায় দুই আসামির জামিন আবেদন খারিজ করে মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) আদালতের লিখিত আদেশ সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চের বিচারকদের স্বাক্ষরের পর প্রকাশ ওই লিখিত আদেশে এই পর্যবেক্ষণ দেখা গেছে।

আদালত পর্যবেক্ষণে বলেছেন, সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ধর্ষণ বিশেষত শিশু ধর্ষণ ও ধর্ষণ পরবর্তী হত্যার মতো ঘৃণ্য অপরাধ বেড়েই চলেছে। এই অপরাধের image সঙ্গে জড়িত অপরাধীর দ্রুততম সময়ে বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে না পারার দায় মূলত রাষ্ট্রের ওপরই বর্তায়। এক্ষেত্রে বিচার বিভাগও জবাবদিহিতার ঊর্ধ্বে নয়।

আদালত লিখিত আদেশে আরও বলেছেন, আমাদের অভিজ্ঞতা হলো, ধর্ষণ সংক্রান্ত মামলার আসামিরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বেপরোয়া ও ধূর্ত প্রকৃতির। এরা ভুক্তভোগী ও তার পরিবারের ওপর চাপ-প্রভাব বিস্তার করে আদালতে সাক্ষ্য প্রদানে ভয়-ভীতি, প্রলোভনসহ বিভিন্ন ধরনের কূটকৌশল অবলম্বন করে। ক্ষেত্র বিশেষে সালিশের নামে সামাজিক বিচার করে ভুক্তভোগী ও তার পরিবারকে মামলা প্রত্যাহারে বাধ্য এবং আদালতে সাক্ষ্য প্রদানে বিরত থাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে থাকে। এ অবস্থায় সাক্ষী সুরক্ষা আইন প্রণয়নের বিকল্প নেই। আমরা প্রত্যাশা করছি সরকার দ্রুততম সময়ে এ বিষয়ে আইন প্রণয়ন করবে।

আদালত বলেন, দেশের বিভিন্ন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ধর্ষণ ও ধর্ষণ পরবর্তী হত্যাসহ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলাসমূহ বিচারের জন্য অপেক্ষমান। এর মধ্যে ৪-৫ বছরের পুরাতন মামলার সংখ্যাও কম নয়। অভিযোগ গঠনে বিলম্ব এবং যুক্তিসংগত কারণ ছাড়া ধার্য তারিখে রাষ্ট্রপক্ষে সাক্ষী উপস্থিত না হওয়ায় ট্রাইব্যুনাল কর্তক কয়েক মাস পরপর তারিখ পড়ছে। যদিও এই (নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন- ২০০০) আইনের ২০(৩) ধারায় সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে, মামলা বিচারের জন্য নথি প্রাপ্তির তারিখ হতে ছয় মাসের মধ্যে বিচার কাজ শেষের পর।

প্রসঙ্গত, ধর্ষণের মামলায় বিচারিক আদালতে জামিন না মঞ্জুরের পর আসামি মো. রাহেল ওরফে রায়হান এবং মো. সেকান্দার আলী জামিন বিষয়ে হাইকোর্টে আপিল করেন। কিন্তু আদালত তাদের আবেদন নামঞ্জুর করে পর্যবেক্ষণসহ উক্ত আদেশ দেন।

সিভয়েস/এএইচ

আরও পড়ুন

দুই দশক পর সিপিপি সমাবেশে বোমা হামলার রায়

দীর্ঘ বিলম্বের পর সিপিবি সমাবেশে বোমা মামলার রায় ঘোষণা হতে যাচ্ছে আজ। ২০০১ বিস্তারিত

‘চট্টগ্রাম গণহত্যা’ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক শেষ

নগরের লালদীঘির পাড়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিস্তারিত

দুই দিনের রিমাণ্ডে নুরে আলম বাংলা

হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফী, মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীসহ বেশ বিস্তারিত

চট্টগ্রামে বিচারক শূণ্য নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ৭

দীর্ঘদিন বিচারক না থাকায় চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিস্তারিত

ধর্ষণ মামলায় দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

নগরে বিয়ের প্রলোভনে দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণ ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় বিস্তারিত

পল্টন হত্যায় ১০ জনের ফাঁসি

হত্যাকাণ্ডের প্রায় এক যুগ পর ওষুধের দোকানি মাজহারুল ইসলাম ওরফে পল্টন বিস্তারিত

অর্থ আত্মসাতের মামলায় যমুনা ব্যাংকের পাঁচ কর্মকর্তা কারাগারে

ভুয়া কাগজ তৈরি করে সরকারি খাসজমি বন্ধক রেখে যমুনা ব্যাংকের সাড়ে ১১ কোটি বিস্তারিত

সেন্টামার্টিন রক্ষায় আদালতের রুল

সেন্ট মার্টিন দ্বীপে পরিচ্ছন্ন ও দূষণমুক্ত পরিবেশ রক্ষার্থে কার্যকর বিস্তারিত

রিফাত হত্যা : ২ আসামির জামিন নাকচ

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার আসামি কামরুল ইসলাম সাইমুন ও রাফিউল বিস্তারিত

সর্বশেষ

অন্তর্বর্তীকালীন রায়কে আশার আলো বলছেন কক্সবাজারের সচেতন মহল

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) গণহত্যার অভিযোগে বিস্তারিত

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে হার দিয়ে সিরিজ শুরু টাইগারদের 

অনেক জল্পনা-কল্পনার পর পাকিস্তানে সিরিজ খেলতে গেছে বাংলাদেশ। তবে অনেক বিস্তারিত

শিশুদের মাঝে মুরগী পোলাও বিতরণ, মুজিব বর্ষ পালন শুরু

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী মুজিব বর্ষ বিস্তারিত

মির্জাপুলে অগ্নি দুর্গতদের পাশে দাঁড়ালেন মেয়র

নগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন মির্জাপুল এলাকার ডেকোরেশন গলিতে ভয়াবহ বিস্তারিত

সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত, এই ওয়েব সাইটের যেকোন লিখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনি