image

আজ, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯ ,


রোহিঙ্গা ক্যাম্পে লাকড়ির পরিবর্তে বাড়ছে গ্যাসে ব্যবহার, রক্ষা পাবে বনাঞ্চল

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে লাকড়ির পরিবর্তে বাড়ছে গ্যাসে ব্যবহার, রক্ষা পাবে বনাঞ্চল

খায়ের হোসেনের স্মৃতিতে এখনো ভাসে-খাবার রান্না করা মানেই লাকড়ি যোগাড় করতে পার্শ্ববর্তী উঁচু খাড়া পাহাড় বেয়ে জঙ্গলে ছুটে যাওয়া। খায়ের অবশ্য নিশ্চিত নন কোনটা তার জন্য কষ্টকর ছিল। লাকড়ি সংগ্রহ করতে গ্রীষ্মের তাপদাহের তীব্রতা নাকি বর্ষার কাঁদাপানিতে ভিজে দুর্গম পথ পাড়ি দেওয়া। সময়ের পরিক্রমায় পাহাড়ি বনাঞ্চল আশঙ্কাজনক ভাবে কমছে। ফলে পরিবেশের ভারসাম্য হুমকির মুখে পড়েছে। পাশাপাশি লাকড়ির দামও বাড়ছে হু হু করে।          

মায়ানমারের থিন বাউ-ক্যেই গ্রামের বাসিন্দা রোহিঙ্গা খায়ের বলেন, কাঠের লাকড়ি কয়েকগুণ বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে image এখন। তাই এলপিজি গ্যাসই আমাদের অন্যতম অবলম্বন।

খায়ের ২০১৭ সালে তার পরিবারের ছয়জন সদস্যসহ মায়ানমার থেকে পালিয়ে এসেছিল।

শুধু খায়েরই নয়, রোহিঙ্গা শরনার্থীরা এখন কাঠের লাকড়ি ব্যবহার থেকে সরে এসে গ্যাসের চুলা ব্যবহারে অভ্যস্ত হচ্ছে। যা এ অঞ্চলের বনাঞ্চল রক্ষায় প্রয়োজন ছিল।

২০১৭ সালের মাঝামাঝিতে মায়ানমার সীমান্ত এলাকা রাখাইনে সহিংসতার ঘটনা ঘটলে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে আসে। বিপুল সংখ্যক এই জনগোষ্ঠী কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে বসবাসের অনুপযোগী পাহাড়ি জায়গায় আশ্রয় নেয়। বিভিন্ন সংস্থা থেকে পাওয়া নানা খাদ্যসামগ্রী রান্না করার জন্য রোহিঙ্গা পরিবারগুলোর লাকড়ির প্রয়োজন তীব্র হয়ে ওঠে। ফলে গোটা এলাকায় লাকড়ির ব্যাপক চাহিদা দেখা দেয়।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর তথ্যমতে, এ পর্যন্ত প্রায় ৭ হাজার হেক্টর বনাঞ্চল নষ্ট হয়ে গেছে। এখন সাইক্লোনের মৌসুম। তাই গাছবিহীন ক্যাম্প এলাকার পরিণতি হতে পারে ভয়াবহ। মাটিক্ষয় ক্যাম্পের জন্য এখন একটি ক্রমবর্ধমান সমস্যা এবং ভারি বৃষ্টিপাতে ক্যাম্পে মারাত্মক পাহাড়ধসের আশঙ্কা বাড়ছে। ২০১৮ সালে মানবিক সহায়তা সংস্থাগুলো এই সমস্যা চিহ্নিত করে এবং শরণার্থী ক্যাম্পে লাকড়ির চাহিদা কমিয়ে ক্যাম্পে বৃক্ষরোপনে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

আইওএম, এফএও (ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অর্গানাইজেশন) এবং ডব্লিউএফপি (ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম) মিলে ‘সেইফ প্লাস’ নামে একটি কর্মসূচি গ্রহণ করে যার মাধ্যমে রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্থানীয় জনগোষ্ঠীদের মাঝে এলপিজি গ্যাস এবং চুলা বিতরণ করা হয়। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্থ বনাঞ্চলের জন্য বনায়ন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়।

এই কর্মসূচির আওতায় শরণার্থী ও স্থানীয়দের গ্যাসের চুলা, এলপিজি গ্যাসের পাশাপাশি গ্যাস পুনরায় রিফিল করার সুবিধাও দিচ্ছে। ইতোমধ্যে ৪৫ হাজার পরিবারকে এলপিজি সুবিধা দেওয়া হয়েছে এবং জুনের মধ্যে ৮০ হাজার পরিবারকে এই সুবিধার আওতায় আনা হবে।

সেইফ প্লাসের আইওএম ইউনিটের প্রধান প্যাট্রিক কেরিগনন বলেন, এখন পর্যন্ত এই কর্মসূচি খুবই সফল। কিন্তু তিন বছর মেয়াদী এই কর্মপরিকল্পনার জন্য ৩০ শতাংশেরও কম অর্থ সাহায্য পাওয়া গেছে। পাশাপাশি এফএও’র সাথে যৌথভাবে চালানো ক্যাম্পের ভেতরে ও চারদিকে বৃক্ষরোপনের উপরও সমান গুরুত্বারোপ করেন ‍তিনি।

তিনি বলেন, এই উদ্যোগ সফল হবে। কারণ এটি লাকড়ির চাহিদা মেটাবে, পাশাপাশি এই অঞ্চলে বনায়নও হবে।

আইওএম-এর প্রোগ্রাম অফিসার সাইফুল ফুয়াদ বলেন, মৌসুমী ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে ভয়ঙ্কর মাটিক্ষয় রোধে বৃক্ষরোপন জরুরি। ভাটিবার ও ব্রুম ঘাস এবং স্থানীয় ঔষধি গাছগুলো পাহাড়ের মাটি ধরে রেখে পাহাড়কে রক্ষা করবে। অন্যান্য গাছ-গাছগুলোও ঔষধি হিসেবে কাজ করবে

তিনি আরো বলেন, স্থানীয় প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে নিম, সেগুনসহ এ এলাকার বিভিন্ন প্রজাতি গাছ রোপন করা হচ্ছে যাতে তা এখানকার জনগোষ্ঠীর কাজে আসে।

সামগ্রিকভাবে এলপিজি কর্মসূচি শরণার্থী ও স্থানীয়দের নজর কেড়েছে। তারা বলেছেন, এটি তাদের কাঠের লাকড়ি খোঁজার সময় বাঁচাচ্ছে এবং তাদের ঘরবাড়িগুলোকে পরিচ্ছন্ন বাতাস প্রবাহে সাহায্য করছে। পাশাপাশি নারীদের লাকড়ির জন্য ক্যাম্প ছেড়ে দূরে জঙ্গলের যাওয়ার ঝুঁকিও কমিয়ে দিয়েছে।

-সিভয়েস/এসএ

আরও পড়ুন

তেল-চিনি ও পেঁয়াজের বাজারে উত্তাপ!

বাজেটে রাজস্ব বৃদ্ধি, আমদানি কমে যাওয়াসহ বিভিন্ন অজুহাতে বিস্তারিত

কাল রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু

পূর্ব-নির্ধারিত সময় অনুযায়ী আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) থেকে শুরু বিস্তারিত

নগরের আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অতীতের তুলনায় এখন অনেক ভালো- সিএমপি কমিশনার

নগরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় অনেক বেশি ভালো। বিস্তারিত

মিরসরাইয়ে পাহাড়ি ঝর্ণায় ৪ বছরে নিহত ১০, আহত শতাধিক

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বিভিন্ন পাহাড়ি প্রাকৃতিক ঝর্ণা দেখতে গিয়ে বিস্তারিত

এক লাখ চামড়া রাস্তায়, ট্যানারি মালিকদের দুষছেন আড়তদাররা

কোরবানির ঈদে চট্টগ্রামে প্রায় এক লাখ পিস কাঁচা চামড়া নষ্ট হওয়ার পেছনে বিস্তারিত

পর্যটকের পদভারে মুখরিত কক্সবাজার

ঈদের ছুটিতে পর্যটকের পদভারে মুখরিত কক্সবাজার। ছুটির ৪র্থ দিনেও লাখো বিস্তারিত

চিড়িয়াখানা ও ফয়’স লেকে পর্যটকদের বাঁধভাঙা আনন্দ

ঈদ মানেই খুশি, ঈদ মানেই আনন্দ। সকাল থেকে বৃষ্টির বিড়ম্বনা থাকলেও থামাতে বিস্তারিত

মেয়র পদে প্রার্থী হতে চান শাহাদাত-বক্কর

আগামী চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-বিএনপির বিস্তারিত

ব্যাপক কদর বেড়েছে গাছের গুঁড়ির, বিক্রি জমজমাট

কোরবানি পশুর মাংস কাটার বিভিন্ন সরঞ্জামাদির পাশাপাশি কদর বেড়েছে গাছের বিস্তারিত

সর্বশেষ

রোহিঙ্গা প্লাবনের দুই বছরের খতিয়ান

দুই বছর আগে এই আগস্ট মাসেই সেনাবাহিনীর হত্যা-ধর্ষণ-নির্যাতনের মুখে বিস্তারিত

সাতক্ষীরায় ডেঙ্গু জ্বরে গৃহবধূর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। বিস্তারিত

টেকনাফে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবলীগ নেতা নিহত

টেকনাফে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে ওমর ফারুক (৩০) নামের এক যুবলীগ নেতাকে হত্যা করেছে বিস্তারিত

‘মানুষের শান্তি ফিরিয়ে আনতেই ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব’

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ভগবান বিস্তারিত

সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত, এই ওয়েব সাইটের যেকোন লিখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনি

close